মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত শিশুদের বিষয়ে ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক অ্যান্থনি লেইকের বিবৃতি

নিউইয়র্ক/ঢাকা, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ – “গত ২৫ আগস্ট থেকে ১ লাখ ২৫ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে, যাদের প্রায় ৮০ শতাংশই নারী ও শিশু। সহিংসতায় বিপর্যস্ত রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চলে এখনও অনেক শিশু রয়েছে; যাদের সহায়তা ও সুরক্ষা প্রয়োজন।
“বাংলাদেশে শরণার্থী শিশুদের সুরক্ষা, পুষ্টি, স্বাস্থ্য, পানি ও স্যানিটেশন সুবিধা প্রদানে ইউনিসেফ তার কার্যক্রমের প্রসার ঘটাচ্ছে।
“মিয়ানমারের আক্রান্ত রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চলে বর্তমানে ইউনিসেফের প্রবেশাধিকার নেই। আমরা ২৮, ০০০ শিশুর কাছে পৌঁছাতে পারছি না; যাদের এর আগে আমরা মানসিক সেবা দিয়েছিলাম বা বুথিডং ও মংডোর ওই ৪,০০০ শিশু, অপুষ্টিজনিত কারণে যাদের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল। আমাদের বিশুদ্ধ পানি ও স্যানিটেশন কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া স্কুল মেরামতে যে কাজ চলছিল সেটাও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
“সীমান্তের উভয় পাশে অবস্থানরত শিশুদের জরুরি সাহায্য ও সুরক্ষা প্রয়োজন।”

 
Search:
For every child
Health, Education, Equality, Protection
ADVANCE HUMANITY
Search: